Contact us:
info@elawyerbd.com

দেওয়ানী আদালতসমূহের এখতিয়ার

দেওয়ানী আদালতসমূহের প্রাথমিকভাবে তিন ধরনের এখতিয়ার রয়েছে । যথাঃ

১। আর্থিক এখতিয়ার (Pecuniary Jurisdiction)।

২। আঞ্চলিক বা স্থানিক এখতিয়ার (Territorial Jurisdiction) ।

৩। বিষয় বস্তু এখতিয়ার (Subject Matter Jurisdiction)।

এছাড়াও দেওয়ানী আদালতসমূহের আরও পাঁচ ধরনের এখতিয়ার রয়েছে । যথাঃ

৪। আদি এখতিয়ার (Original Jurisdiction)।

৫। আপীল এখতিয়ার (Appellate Jurisdiction)।

৬। পুনরীক্ষণ এখতিয়ার (Revision Jurisdiction  )।

৭। পুনঃ বিবেচনা এখতিয়ার (Review Jurisdiction) ।

৮। প্রশাসনিক এখতিয়ার (Administrative Jurisdiction) ।

 

আদালত সমূহের আর্থিক এখতিয়ার নিম্নরুপঃ

১। জেলা জজঃ সাধারণত এই আদালত কোন মোকদ্দমা বিচারের জন্য গ্রহন করতে পারেন না । এই আদালতের আপীল এখতিয়ার ৫,০০,০০০ (পাঁচ লক্ষ) টাকা পর্যন্ত ।

২। অতিরিক্ত জেলা জজঃ এই আদালত কোন আপীল বা মূল মোকদ্দমা বিচারের জন্য সরাসরি গ্রহন করতে পারেন না। জেলা জজ আদালতে দাখিলকৃত দরখাস্ত নিষ্পত্তির জন্য এই আদালতে প্রেরন করা হয় ।

৩। যুগ্ম জেলা জজঃ এ আদালত ৪,০০,০০০(চার লক্ষ ) টাকার অধিক যে কোন মুল্যমানের বিষয়বস্তুর মূল মোকদ্দমা বিচার ও নিষ্পত্তি করতে পারেন । এই আদালত কোন আপীল বা রিভিশন গ্রহন করতে পারেন না।

৪। সিনিয়র সহকারী জজঃ এই আদালত ২,০০,০০০(দুই লক্ষ) টাকার অধিক হতে ৪,০০,০০০(চার লক্ষ ) টাকা পর্যন্ত যে কোন মুল্যমানের বিষয়বস্তুর মূল মোকদ্দমা বিচার ও নিষ্পত্তি করতে পারেন । এই আদালত কোন আপীল বা রিভিশন গ্রহন করতে পারেন না।

৫। সিনিয়র সহকারী জজঃ এই আদালত ২,০০,০০০(দুই লক্ষ) টাকা পর্যন্ত যে কোন মুল্যমানের বিষয়বস্তুর মূল মোকদ্দমা বিচার ও নিষ্পত্তি করতে পারেন । এই আদালত কোন আপীল বা রিভিশন গ্রহন করতে পারেন না।

 

Leave a comment