Contact us:
info@elawyerbd.com

একজন আইনজীবীর দায়িত্ব ও কর্তব্য

আইনজীবীদের সংবিধান “The Bangladesh Legal Practitioners and Bar Council Order and Rules 1972 এর Canons of Professional Conduct and Etiquette” নামক অংশে একজন আইনজীবীর সঙ্গে অন্যান্য আইনজীবী, মক্কেল, আদালত, এবং জনগণের সহিত কাঙ্খিত আচরন, শিষ্টাচার ও কার্যকলাপ সম্পর্কে বলা হয়েছে । এ সকল বিধি-বিধান মেনে চলা একজন আইনজীবীর আবশ্যকীয় কর্তব্য, এগুলো ভঙ্গ করা “পেশাগত অসদাচরণ” ।

 

অন্যান্য আইনজীবীর সাথে সম্পর্কঃ

বিধি-১। একজন সদস্য হিসেবে প্রত্যেক আইনজীবীর দায়িত্ব নিজের মর্যাদা ও উচ্চাসন সমুন্নত রাখার পাশাপাশি তাহার পেশার মর্যাদা ও উচ্চাসন বজায় রাখা ।

বিধি-২। একজন আইনজীবী বিজ্ঞাপন বা অন্য কোন মাধ্যমে পেশাগত নিযুক্তি অর্জনের চেষ্টা করবেন না ।

বিধি-৩। একজন আইনজীবী পেশাগত নিযুক্তির জন্য কাউকে কোন পারিশ্রমিক প্রদান করবেন না অথবা অননুমোদিত ব্যক্তির সাথে পেশাগত অর্থ বন্টনের অংশীদার হবেন না অথবা অননুমোদিত কোন ব্যক্তিকে আইন পেশা পরিচালনা করতে সহায়তা বা প্ররোচনা দিবেন না ।

বিধি-৪। একজন আইনজীবী অনুপস্হিত থাকলে তাহার অনুপস্হিতিতে এবং তাহার সম্মতি ছাড়া মামলার বিষয়বস্তু নিয়ে অন্য কোন আইনজীবী তাহার মক্কেলের সাথে আলাপ-আলোচনা করবেন না ।

বিধি-৫। অন্যপক্ষের আইনজীবী অনুপস্হিত থাকাকালে একজন আইনজীবী বিচারকের নিকট কোন তথ্য বা যুক্তিতর্ক, বিচারকের সম্মুখে অথবা উন্মুক্ত আদালত ব্যতীত বিচারাধীন আদালত বা বিচারিক কর্মকর্তার নিকট প্রকাশ করবেন না ।

বিধি-৬। একজন মক্কেল একাধিক আইনজীবীর সহযোগিতা চাইলে সে ক্ষেত্রে বাধা দেয়া যাবে না । প্রথমে নিযুক্ত আইনজীবীর বকেয়া ফিস পরিশোধ না করে থাকলে ইহাতে অপর আইনজীবী জড়িত হওয়া সংগত হবে না ।

বিধি-৭। আইনজীবীগণের মধ্যে ব্যক্তিগত সকল বিবাদ এড়ায় চলতে হবে । কোন মামলার বিচার চলাকালে ব্যক্তিগত ইতিহাস বা ব্যক্তিগত বৈশিষ্টের ব্যাপারে অপর পক্ষের আইনজীবী সম্পর্কে বক্তব্য দেওয়া যাবে না ।

বিধি-৮। ফিস বিষয়ে আইনজীবীগণের মধ্যে বন্টনের নীতিমালা অনুযায়ী বন্টিত ব্যতীত, আইন সহায়তার জন্য কোন ফিস অন্য কোন ব্যক্তির সঙ্গে বন্টিত করবেন না ।

বিধি-৯। নবীন সদস্যগন সর্বদা প্রবীণ সদস্যদের শ্রদ্ধা সম্মান করবেন

বিধি-১০। কোন পক্ষে একাধিক আইনজীবী নিয়োজিত হলে, সেই ক্ষেত্রে জ্যেষ্ঠ আইনজীবী মামলা পরিচালনা করবেন।

 

মক্কেলের সাথে সম্পর্কঃ 

বিধি-১। একজন আইনজীবী কখনোই মক্কেলের সম্পত্তি বা মামলায় জড়িত স্বার্থের প্রতি আসক্ত হবেন না ।

বিধি-২। জড়িত বিষয় সম্পর্কে ইতিপূর্বে কোন গোপনীয় তথ্য অবগত হয়ে থাকলে, একজন আইনজীবী পরবর্তীতে তাহার বিরুদ্ধপক্ষে উক্ত বিষয়ে নিয়োগ গ্রহন করবেন না ।

বিধি-৩। বিরুদ্ধপক্ষের সাথে সম্পর্ক বা অনুরুপ নিয়োগের বিষয়বস্তুতে আইনজীবীর কোন স্বার্থ থাকলে, তা প্রকাশ না করে একজন আইনজীবী পেশাগত নিয়োগ গ্রহন করবেন না ।

বিধি-৪। একজন আইনজীবী কোন মামলায় উভয়পক্ষের নিযুক্ত গ্রহন করবেন না ।

বিধি-৫। একজন আইনজীবী যে সম্পত্তির পক্ষে মামলা পরিচালনা করেছেন, তিনি সেই সম্পত্তি নিজে বা বেনামে বন্ধকী উদ্ধারের মাধ্যমে বা আদালতের মাধ্যমে ক্রয় করবেন না ।

বিধি-৬। একজন আইনজীবী তাহার নিজের সম্পত্তির সাথে মক্কেলের সম্পত্তি মিশ্রত করবেন না ।

বিধি-৭। একজন আইনজীবী কোন পক্ষের সাথে সম্পর্ক হলে বা বিষয়বস্তুর সঙ্গে সম্পর্ক হওয়া ব্যতীত কোন মামলার বাদী বা বিবাদীকে কোন পরামর্শ প্রদান করবেন না, অর্থাৎ যতক্ষণ পর্যন্ত না তাকে উক্ত বিষয়ে সম্পৃক্ত করা হয় ।

বিধি-৮। একজন আইনজীবী তাহার পেশাগত ক্ষমতায় আইন ভঙ্গের পরামর্শ দিবেন না ।

বিধি-৯। একজন আইনজীবীর অধিকার হচ্ছে কোন অপরাধে অভিযুক্ত ব্যক্তির পক্ষে অংশগ্রহন করা ।

 

পেশাগত অসদাচরণের শাস্তিঃ

কোন আইনজীবীর বিরুদ্ধে আনিত পেশাগত অসদাচরণের অভিযোগ প্রমানিত হলে “বাংলাদেশ বার কাউন্সিল” ট্রাইব্যুনাল এই আইনের অনুচ্ছেদ ৩৪(৪) অনুসারে উক্ত দোষী আইনজীবীকে তিরস্কার বা আইনপেশা পরিচালনা হতে সাময়িক ভাবে বরখাস্ত অথবা স্হায়ীভাবে পেশা পরিচালনা হতে অপসারণ করিতে পারেন ।

কৃতজ্ঞতা স্বীকারঃ নঈম’স হেল্প লাইন, বি. এম. নঈম, আইনজীবী, বাংলাদেশ সুপ্রীম কোর্ট।

 

Leave a comment